বিএনপি’র আমলে গোপালগঞ্জে হারিকেন জ্বালিয়ে কাজ করেছি: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ সারাদেশ
Spread the love

বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বিদ্যুৎ বিভাগের বেশকিছু প্রকল্প উদ্বোধনের সময় অনেকটা আক্ষেপের সুরেই এ কথা বলেন তিনি।

সম্প্রতি বগুড়া ও নোয়াখালীতে নির্মাণ সম্পন্ন হওয়া, দুটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম ভিডিও কনফারেন্সে চালু করেন প্রধানমন্ত্রী।

এর মধ্যে বগুড়ায় নির্মিত ১১০ মেগাওয়াট উৎপাদনে সক্ষম বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণ করেছে কনফিডেন্স পাওয়ার এবং নোয়াখালীতে ১১৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রটি নির্মাণ করেছে এইচএফ পাওয়ার।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে দেশের সব মানুষকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসতে কাজ করছে তার সরকার।

এ সময়, প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে উঠে আসে বিগত বিএনপি সরকার শাসনামলের বিভিন্ন ইস্যু। তিনি বলেন, ‘বিএনপি জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকতে, বাজেট দেওয়ার সময় খুব গালগল্প দিতো- এটা দেবো, ওটা দেবো। আর পরে সেই টাকাগুলো কেটে নিয়ে চলে যেতো !’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি যখন গোপালগঞ্জে যেতাম, তখন সারাদিনই বিদ্যুৎ পেতাম না। জেনারেটর অথবা হারিকেন জ্বালিয়ে কাজ করতে হতো। এই ছিল অবস্থা!’

আক্ষেপের সুরে প্রধানমন্ত্রী জানান, ‘আমরা কিন্তু যখন উন্নয়ন করি। তখন কিন্তু আমরা নির্দিষ্ট কোনো জায়গাকে অবহেলা করি না। আজকে আপনারা সেই দৃষ্টান্ত পাচ্ছেন যে, বগুড়ায় ১১০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র আমরাই করেছি এবং সেইটা আমরা আজ উদ্বোধনও করলাম।

এই অনুষ্ঠান থেকে ২টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র ছাড়াও প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করেছেন ১১টি গ্রিড উপকেন্দ্র, ৬টি সঞ্চালন লাইন ও ৩১টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন কর্মসূচিরও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *