রাজধানী থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ, কিশোরীকে পাচারের চেষ্টা

অন্যান্য অপরাধ বাংলাদেশ
Spread the love

পাচারের চেষ্টার অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) সিআইডির সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক শেখ রেজাউল হায়দার এ কথা জানান।

গ্রেপ্তার আসামির নাম মহেমুনুজ্জামান ওরফে প্রতীক খন্দকার ওরফে বাবু। গতকাল সোমবার চট্টগ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই মামলার আরেক আসামি জান্নাতুল ওরফে জেরিন, রিফাত ও জাকিয়া আগেই গ্রেপ্তার হন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় ওই কিশোরীকে উদ্ধার করা হয় যশোরের বেনাপোল থেকে।

পুলিশ বলছে, গত বছরের নভেম্বরে মা–বাবার সঙ্গে মনোমালিন্য হলে তারা মেয়েটিকে ফুঁসলে বাসার বাইরে নিয়ে আসেন। পরে বাসে করে যশোরের বেনাপোলে নিয়ে যান।
তদন্তকারীরা মনে করছেন, পাচারকারীরা মেয়েটিকে ওষুধ প্রয়োগ করে বা নেশাজাতীয় কিছু খাওয়ায়। এ কারণে সে একরকম অচেতন অবস্থায় বেনাপোলে পৌঁছায়।

পরিবারের পক্ষ থেকে সবুজবাগ থানায় মামলা করা হলে পুলিশ বেনাপোলের একটি বাসা থেকে উদ্ধার করে মেয়েটিকে।

ব্রিফিংয়ে সিআইডি জানায়, সংঘবদ্ধ এই চক্রের মূল হোতা প্রতীককে তারা চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করেন। এর আগে প্রতীকের সহযোগি জেরিন গ্রেফতার হলেও এখন জামিনে মুক্ত। এই চক্রের আরো দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সিআইডি জানায়, প্রতারক চক্রের মূল হোতাসহ কয়েক জনকে গ্রেফতার করা হলেও পুরো চক্রটির সব সদস্যকে তারা গ্রেফতারের চেষ্টা করছেন। ব্রিফিং এ সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ রেজাউল হায়দার আরো জানান, এই চক্রটি প্রথমে নারী ও শিশুদের টার্গেট করে। এরপর তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা তৈরি করে পাচার ও দেহ ব্যবসায় বাধ্য করে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *